Home বিনোদন কুমিল্লা অঞ্চলে প্রাচীন বিবাহ প্রথা
বিনোদন - April 8, 2021

কুমিল্লা অঞ্চলে প্রাচীন বিবাহ প্রথা

পুরানো প্রথায় কুমিল্লা অঞ্চলের বিবাহ শাদি

প্রাচীনকাল থেকে এ জেলার মানুষের রীতিনীতি ও উৎসব আয়োজন অতি প্রাঞ্জল ও মনোমুগ্ধকর। আজ আমরা আলোচনা করব কুমিল্লা অঞ্চলের বিবাহপ্রথা নিয়ে-

 

বাংলাদেশের প্রায় জেলাগুলোতে গায়ে হলুদ অনুষ্ঠানের প্রথা বিশেষভাবে পালিত হয়। কুমিল্লাতেও এর ব্যতিক্রম কিছু নয়। প্রাকৃতিক উপাদান দিয়েই অনুষ্ঠিত হয় গায়ে হলুদ অনুষ্ঠানের সজ্জাকরণ উপকরণ। 

গ্রামের বাড়ির উঠানে চৌকি পেতে তার ওপর চাদর বিছিয়ে আয়োজন করা হতো সাজানো হতো হলুদের স্টেজ, বাঁশ বা কলাগাছ দিয়ে হলুদের স্টেজ এর সম্মুখভাগ সাজানো হতো, রঙিন কাজ ত্রিকোনা করে কেটে ও জোড়া দিয়ে রিং বানিয়ে সুতায় ঝুলিয়ে সাজানো হতো পুরো বাড়ি।

হলুদের উপকরণ বরের বাড়ি হতে পাঠানো হতো কনের বাড়িতে আর কনের বাড়ি থেকে উপকরণের ডালা সাজিয়ে পাঠানো হতো বরের বাড়িতে। উপকরণগুলোর মধ্যে মূল উপহার থাকতো হলদে রঙের পোশাক, জুতা ও টাওয়াল বা গামছা। বরের বাড়ি থেকে কনের বাড়িতে হলুদের উপকরণগুলোর সাথে থাকত একটি বড় মাছ আর মাছের মুখে পুরে দেওয়া হতো উপহার হিসেবে টাকা, মাছটি যিনি কাটবেন তিনি পেতেন সেই উপহারের টাকা। 

হলুদের অনুষ্ঠানে লোকগীতির আয়োজন করা হতো। কনের বড় বোনের জামাই বা দুলাভাই থাকলে তিনি কনের জন্য হলুদের দিন কনের গোসলের পানি বহন করে নিয়ে যেতেন। 

হলুদের দিন উপহার নামক একপ্রকার চিঠির প্রচলন ছিল যা বর ও কনের ছোট ভাই বোন বর ও কনের উদ্দেশ্যে লিখতো আর সেই চিঠি সবার সামনে ঘটা করে পড়ে শোনানো হতো। 

বিয়ের দিন বরের বাড়ি থেকে কনের জন্য গয়না ও বিয়ের  পোশাক নিয়ে আসা হতো। পাশাপাশি কনের মা, দাদি, নানি সহ ছোট ভাই-বোনের জন্যও উপহার হিসেবে নিয়ে আসা হতো পোশাক। কনেকে সাজানো হতো আর বিয়ের জন্য কনের সম্মতি ঘরের ভেতর থেকে ও বরের সম্মতি গ্রহণ করা হতো সাজানো স্টেজে। যৌতুক হিসেবে নয় তবে উপহার হিসেবে বরের জন্য কনের বাড়ি থেকে ঘর সাজানোর উপকরণ হিসেবে আসবাবপত্র দেওয়া হতো। বিয়ের কয়েকদিন পর আয়োজন করা হতো বৌভাত অনুষ্ঠান। কনের বাড়ির লোকেরা যেতেন বরের বাড়িতে বৌভাত অনুষ্ঠানে। বৌভাত অনুষ্ঠানের শেষেই বর কনে দুজন কনের বাবার বাড়িতে চলে আসতেন কয়েকদিন থাকতে উৎসবের আয়োজনে প্রতিটি রীতিকে খুব জাকজমকভাবেই উদযাপন করা হতো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Check Also

২৫শে এপ্রিল থেকে সীমিত আকারে খুলবে শপিংমল ও দোকানপাট।

আজ ২৩শে এপ্রিল শ্রক্রবার প্রজ্ঞাপন জারী করা হয়েছে, ২৫শে এপ্রিল থেকে খুলে দেওয়া হবে শপিং মল…